Show Categories

অপছন্দের শিক্ষক ও সন্তানের জটিলতা; আপনার করণীয় কী?

অপছন্দের শিক্ষক

সন্তানকে স্কুলে ভর্তি করানোর পর কিংবা বাসায় টিচার রাখার পর আপনার সন্তানের দিনের বেশিরভাগ সময় কাটবে স্কুলে ও শিক্ষকের সাথে। সেক্ষেত্রে শিক্ষকের সাথে মধুর কিংবা দ্বন্দ্বের সম্পর্ক তৈরি হওয়াও স্বাভাবিক। সাধারণত ৫-৬ বছর বাড়ির পরিবেশে কাটানোর পর স্কুলে ভর্তি করালে শিশুর জীবনযাপনে কিছুটা পরিবর্তন আসে। এই পরিবর্তনকে অনেক শিশুই স্বাভাবিকভাবে নিতে পারে না। স্কুল ভালো লাগে না। আর আমাদের দেশে বছরের পর বছর শিক্ষককে একটি ভীতিকর চরিত্র হিসেবে দাঁড় করানোয় অনেক শিশুই শিক্ষককে খুব একটা পছন্দ করে না। যদি কখনো এমন হয় যে, আপনার সন্তান আপনাকে এসে আপনার তার অপছন্দের শিক্ষক সম্পর্কে বলে! কিংবা সন্তানের স্কুলের প্রতি অনীহার কারণ খুঁজতে গিয়ে আপনি এমন কিছু আবিষ্কার করেন; তখন বাবা-মা হিসেবে আপনার করণীয় কী? সে সব নিয়েই আমাদের আজকের ব্লগ।

শিশুরা শিক্ষকদের কেন পছন্দ করে না? 

অনেক ক্ষেত্রে নতুন স্কুলে ভর্তি হওয়ার পর অনেক জটিলতার মতো শিক্ষককে অপছন্দ করার জটিলতাও সামনে আসে। তবে কয়েকটা নির্দিষ্ট কারণে কিছু কিছু শিক্ষক আপনার সন্তানের অপছন্দের শিক্ষক হয়ে উঠতে পারে।

  • শিক্ষকের অতিরিক্ত কড়া মনোভাবের জন্য কোন শিক্ষক আপনার সন্তানের অপছন্দের শিক্ষক হতে পারে।
  • অনেকক্ষেত্রে শিক্ষকের পক্ষপাত মূলক আচরণের জন্যও শিশুরা শিক্ষককে অপছন্দ করে। অন্য শিক্ষার্থীদের তুলনায় তার দিকে মনোযোগ কম দেয়া, কোন নির্দিষ্ট ঘটনায় ( বেশিরভাগ ক্ষেত্রে অন্য শিক্ষার্থীদের সাথে দ্বন্দ্ব)শিক্ষকের রায় পছন্দ না হওয়া কিংবা তার কাছ থেকে বেশি বেশি পড়া ধরাও হতে পারে।
  • স্কুলের পারফর্মেন্সের জন্য হেয় করার কারণেও অনেক সময় শিশুরা শিক্ষককে অপছন্দ করে।
  • কোন কোন ক্ষেত্রে অতিরিক্ত নজরদারীর জন্যও শিশুরা শিক্ষকদের অপছন্দ করতে পারে।
  • অনেক শিক্ষার্থী কোন ধরণের কারণ ছাড়াই শিক্ষকদের অপছন্দ করে। স্কুলের প্রতি অনীহাই মূলত এই অপছন্দের মূল কারণ। স্কুলের প্রতি অনীহা থেকে স্কুলের সাথে সম্পর্কিত সবকিছুকে অপছন্দ করার একটা প্রবণতা তৈরি হয় তার মাঝে।

সন্তান শিক্ষককে অপছন্দ করার অভিযোগ নিয়ে এলে কিংবা আপনি এমন কিছু আবিষ্কার করতে পারলে কী করবেন?

অভিযোগকে গুরুত্ব সহকারে শুনুন

সন্তান যদি এমন অভিযোগ নিয়ে আসে তাহলে কোনভাবেই সেটাকে এড়িয়ে যাবেন না বা হালকাভাবে নিবেন না। অনেক বাবা-মাই সন্তানের এমন অভিযোগকে পাত্তা দেয় না কিংবা এইসবকে সন্তানের ফাজলামি বা স্কুলের প্রতি অনীহার কারণ হিসেবে দেখেন। এমনটা করা যাবে না! এতে সন্তান বেশ হতাশ হয়ে পড়বে। শুরুতেই আপনার দায়িত্ব হবে সন্তানের অভিযোগকে গুরুত্বের সাথে নিয়ে মনোযোগ দিয়ে তা শোনা।

অপছন্দের কারণ বা নির্দিষ্ট ঘটনা শুনতে চাওয়া

কোন শিক্ষকের নামে সন্তান অপছন্দের অভিযোগ নিয়ে আসলে সন্তানের কাছ থেকে কারণগুলো বিস্তারিত জানার চেষ্টা করুন। সম্ভব হলে কোন নির্দিষ্ট ঘটনা থাকলে তাও জানতে চান। অপছন্দের কারণ যদি কোন কোন নির্দিষ্ট ঘটনা হয়ে থাকে তাহলে সেখানে আপনার সন্তানের ভূমিকা কী ছিলো, সন্তানের কোন আচরণের জন্য শিক্ষক তার সাথে অপছন্দের কোন আচরণ করেছে তা জানতে চেষ্টা করুন। একটা বিষয় খেয়াল রাখবেন, আপনার জানতে চাওয়া যেন কোনভাবেই জেরা করার মতো না হয়ে যায়। স্বাভাবিক কোন বিষয় জানতে চাওয়ার মতো বন্ধুসূলভভাবে জানতে চান।

অভিযোগ বিবেচনা করা

অভিযোগের কারণ ও পুরো ঘটনা ভালোভাবে জানার পরবর্তী ধাপ হলো আপনার অবস্থান থেকে নির্মোহ ভাবে সেটাকে বিবেচনা করা। প্রথমত সন্তানের কাছ থেকে জানা অভিযোগটি যদি আপনার কাছে স্বাভাবিক মনে হয় (মানে শিক্ষকের কাজটি অনৈতিক বা বাজে না) তাহলে সন্তানকে বিষয়টি ভালোভাবে বুঝিয়ে বলতে পারেন। অনেক সময় এমন হয়, কোন কোন মানুষের আচরণ খারাপ না, কিন্তু তাদের প্রকাশ ভঙ্গিতে তা অনেকের কাছে খারাপ লাগতে পারে। আর শিশুদের যেহেতু এমন অনেক বিষয় বুঝতে পারার মতো পরিপক্কতা তৈরি হতে একটু সময় লাগে, সেহেতু আপনি আপনার সন্তানকে শিক্ষকের আচরণটি ব্যাখ্যা করতে পারেন। শিক্ষকের কোন আচরণ তার পছন্দ না মানে শিক্ষক তাকে অপছন্দ করে বিষয়টি এমন না; এটা সন্তানকে বুঝিয়ে বলুন। তবুও সন্তানের অভিযোগটি জানার চেষ্টা করুন। এরপর যদি মনে হয়, শিক্ষকের কাজটি অনৈতিক বা কাজটি আপনার সন্তানের বিকাশে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে তাহলে আপনার সন্তান ছাড়া অন্য কোন উৎস থেকে বিষয়টি সঠিকভাবে জানার চেষ্টা করুন।

শিক্ষকের সাথে কথা বলা

আপনার সন্তান দিনের বেশিরভাগ সময় স্কুলে কাটায়। সেক্ষেত্রে শিক্ষকের সাথে আপনার সন্তানের পাশাপাশি আপনার ভালো সম্পর্ক থাকাও জরুরী। সন্তানের অভিযোগ যেমনই হোক, আপনি সেটা নিয়ে শিক্ষকের সাথে একটা বন্ধত্বপূর্ণ আলোচনা করে নিতে পারেন। আপনার সন্তানের ব্যক্তিত্বের ধরণ শিক্ষককে বুঝিয়ে বলতে পারেন। এক্ষেত্রে অবশ্যই একটা বিষয় মনে রাখবেন, শিক্ষকের সাথে আপনার আলোচনাটি যেন ব্লেইম গেইম না হয়ে সহযোগীতাপূর্ণ হয়। আলোচনা মূল বিষয়টি যেন, আপনি ও শিক্ষকের সহযোগীতায় আপনার সন্তানকে সমস্যাটি থেকে বের করার প্রক্রিয়া নিয়ে হয়।

অভিযোগের বিষয়টি অনেক স্পর্শকাতর ও অনৈতিক মনে হলে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করুন।

অপছন্দের শিক্ষক এর বিরুদ্ধে আপনার সন্তানের অভিযোগটি যদি সত্যিকার অর্থে স্পর্শকাতর হয়, শিক্ষকের সাথে আলোচনার পরও যদি তা কোন সমাধানের পর্যায়ে না আসে তাহলে অতি দ্রুত উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করা উচিত। ক্লাস টিচারের অনৈতিক আচরণ ও প্রতিনিয়ত রূঢ় আচরণ আপনার সন্তানের বিকাশে নেতিবাচক প্রভাব তো ফেলবেই, একই সাথে আপনি কোন ব্যবস্থা না নিলে আপনার সন্তানের মাঝে হতাশাও তৈরি হবে। স্কুলের প্রতি অনীহা তো থাকবেই। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করেও কোন সমাধান না আসলে আপনার উচিত হবে ক্লাস শিফট অথবা স্কুল পরিবর্তন করে ফেলা। সন্তানের সঠিক বিকাশের জন্য আপনাকে এটুকু কষ্ট করতেই হবে।

বাংলাদেশের প্রথম এবং একমাত্র সায়েন্স কিট অন্যরকম বিজ্ঞানবাক্স আপনার সন্তানের অবসর সময় সুন্দর করবে, এবং তার মেধা বিকাশে সাহায্য করবে। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন।

1,042 total views, 1 views today

What People Are Saying

Facebook Comment