View cart “তড়িৎ তাণ্ডব” has been added to your cart.
Bundle6-3Bundle6-3

জায়ান্ট পিক্সেল এবং মজার পেরিস্কোপ

৳ 1,175

  • মোটর, ফ্যান
  • বর্ণ চাকতি
  • পেরিস্কোপ বক্স
  • বক্স দিয়ে পেরিস্কোপ বানানোর জন্য রয়েছে দুইটি আয়না
  • রংয়ের যত রহস্য সব
  • তিনটি রং দিয়েই বানাই পৃথিবীর সকল রং
  • রংয়ের ভেতরের রং দেখা
  • ফিল্টার দিয়ে রং ভ্যানিশ করা।
View cart

Product Description

মজার পেরিস্কোপ বিজ্ঞানবাক্সটি আমরা কেন তৈরি করেছি?

আলোর ঝলক বিজ্ঞানবাক্সের কিছু মজার এক্সপেরিমেন্টকে আরো বেশি শিক্ষণীয় করে মজার পেরিস্কোপ বিজ্ঞানবাক্সটি তৈরি করা হয়েছে। আলোর প্রতিফলন, প্রতিসরণ, নিউটনের বর্ণ চাকতি, মৌলিক রং ইত্যাদিকে বাচ্চাদের মাঝে আরো সহজ ও আনন্দময় করে তুলবে এই বিজ্ঞানবাক্সটি। বর্ণ চাকতির মাধ্যমে আমাদের মস্তিষ্কে কোন বস্তুর স্থায়িত্ব সম্পর্কেও মজার পেরিস্কোপ বাক্সের মাধ্যমে জানা যাবে। ফিজিক্স বইয়ের আলোর অধ্যায় সম্পর্কে বাচ্চারা আগেই একটা সহজ ধারণা পাবে মজার পেরিস্কোপ থেকে।

কী কী আছে মজার পেরিস্কোপে?

মোটর, ফ্যান, বর্ণ চাকতি, পেরিস্কোপ বক্স, বক্স দিয়ে পেরিস্কোপ বানানোর জন্য রয়েছে দুইটি আয়না।

কী কী করা যাবে এগুলো দিয়ে

পেরিস্কোপের মাধ্যমে দৃষ্টির বাইরের বস্তু দেখা, আলোর প্রতিসরণ ও প্রতিফলন সম্পর্কে জানা, নিউটনের বর্ণ চাকতি, মৌলিক রং দিয়ে বিভিন্ন রং তৈরি করা ইত্যাদি এক্সপেরিমেন্ট মজার পেরিস্কোপ বাক্স দিয়ে করা যাবে।

কেন আমরা Giant Pixel স্মার্ট কিট টি তৈরী করছি?

একটা ছোট্ট বাচ্চাকে যদি বলি, হলুদ রংয়ের কোন বস্তুর মধ্যে আসলে একসাথে দুটো রং আছে! সে অনেক অবাক হবে না? হয়তো বিশ্বাসই করতে চাইবে না! কিন্তু তাকে যদি রংয়ের ভেতরে বিজ্ঞান বুঝিয়ে দেয়া যায়, হলুদ রঙ যে লাল ও সবুজ রংয়ের সমষ্টি তা বুঝিয়ে দেয়া যায়, তাহলে সে বিজ্ঞানের মজার পৃথিবী সম্পর্কে আরো বেশি কৌতূহলী হবে।

পৃথিবীতে হাজার হাজার রং, এই রঙিন দুনিয়ায় রংয়ের কোন অভাব নেই। কিন্তু মাত্র তিনটি মৌলিক রং (লাল, নীল ও সবুজ) ব্যবহার করেই পৃথিবীর সকল রং তৈরি করে ফেলা যায়! আমরা চাই, আমাদের সন্তানেরা রংয়ের এই রহস্য সম্পর্কে জানুক। তারা জানুক কোন কোন রং মেলালে কমলা রং, কোন রংয়ের সাথে কোন রং দিলে পাওয়া যায় বেগুনি রং।

Giant Pixel এর উপকরণ সমূহ

নাম বলতে গেলে অল্প কয়েকটা উপকরণ আছে জায়ান্ট পিক্সেলে। কিন্তু এর এক্টিভিটি আছে অগণিত। একটা আরজিবি এলইডি মডিউল, ব্যাটারি, মজার চশমা ও তিন রংয়ের ফিল্টার পেপার। কিন্তু ম্যাজিক বক্সের মতো সব ম্যাজিক আছে আরজিবি এলইডি মডিউলে। আরজিবি এলইডি মডিউলকে গুপ্তধনও বলা যায়। এই মডিউলেই আছে এলইডি লাইট ও মৌলিক রংয়ের তিনটি নব। যেগুলো ঘুরালেই চোখের সামনে হাজার হাজার রং খেলা করবে।

কী কী করা যায় এগুলো দিয়ে 

জায়ান্ট পিক্সেলের মৌলিক রংয়ের নবগুলো ঘুরালে এলইডি লাইটে রংয়ের মিশ্রণের ফলে তৈরি হওয়া নতুন রং দেখা যাবে। আবার মজার চশমা চোখে দিলে নতুন রংটি কোন কোন রংয়ের মিশ্রণে তৈরি হয়েছে ও কোন রং কতটুকু পরিমাণে আছে তাও দেখা যাবে। কোন রং কতটুকু পরিমাণ মেশালে হালকা হলুদ রং হয়, গাড় হলুদ বা উজ্জ্বল হলুদের জন্য কোন রং কতটুকু মেশাতে হয়, এমন অনেক তথ্য জানা যাবে। আর রংয়ের ফিল্টারগুলো ব্যবহারের ফলে রংয়ের শোষণ ক্ষমতা সম্পর্কে জানা যাবে।

Customer Reviews

Be the first to review “জায়ান্ট পিক্সেল এবং মজার পেরিস্কোপ”

Your email address will not be published. Required fields are marked *

There are no reviews yet.