Show Categories

নবজাতকের বিকাশের ক্রমধারাঃ বয়স যখন ৩ থেকে ৪ মাস! (২য় পর্ব)

 

শিশু জন্মের পরই বেশিরভাগ বাবা মায়ের বিক্ষিপ্ত অবস্থায় সময় কাটে। বারবার কাঁথা পাল্টানো, ডায়াপার পাল্টানো, অসুখ লেগে থাকা, রাতের ঘুম বলতে জীবনে কিছু না থাকা- সব মিলিয়ে একেবারে পারফেক্ট হ য ব র ল অবস্থা যাকে বলে! এর মধ্যে বাচ্চার ডেভেলপমেন্টাল টাস্ক বা স্টিমুলেশনের বিষয়গুলো মাথায় রাখা খুবই কঠিন কাজ। তবুও পরে পস্তাতে না চাইলে প্রথম থেকেই সবকিছুর সাথে তাল মিলিয়ে চলাটাই ভালো।

একটি শিশুর বেড়ে ওঠার সময়ে তার যে বিকাশ হয় সেটাকে অল্প শব্দে বাঁধাই করা মুশকিল। প্রতিটি দিন তার বয়স এক দিন করে বাড়ে, সেই সাথে তার Motor, Emotional, Social, Cognitive, Moral & Conscience, Self Concept, Language, Speech development সহ নানাবিধ বিকাশ চলতে থাকে। প্রত্যেকটি বিকাশেরই বিভিন্ন স্তর আছে, ডেভেলপমেন্টাল টাস্ক আছে।

এই লেখাতে কোন স্পেসিফিক ডেভেলপমেন্ট নিয়ে আলোচনায় যাবো না। ওভারঅল বিকাশের সাধারণ পথ ধরে নবজাতকের প্রথম তিন থেকে চার মাসে সে কীভাবে বেড়ে উঠে তাই নিয়ে আলোচনা করবো।

তিন মাস বয়সী শিশুর বিকাশ (সপ্তাহ সপ্তাহ ১২)
সপ্তাহ

গান-শব্দ-সুরে শিশুর পৃথিবী জীবন্ত হয়ে উঠবে এই সময়ে। হাই পিচ-টোনের শব্দ তাকে অনুপ্রাণিত করবে। সেই সাথে আপনার বলা কথাগুলো শোনার চেষ্টা করবে, তার সাথে কথা বললে সে মুখের দিকে তাকিয়ে তা শুনবে। অনেক সময় গা গি আ উ করে কথোপকথন চালাবে। তাই শিশুকে কোন কিছু পড়ে শোনানোর জন্য এটাই সবচেয়ে উপযুক্ত সময়। এই সপ্তাহ থেকে তার ভোকাবুলারি বিল্ড আপ শুরু হবে।

সপ্তাহ১০

আপনার শিশু এখন এক ঝাঁক মানুষের মধ্যেও তার মা বাবাকে আলাদা করে খুঁজে বের করতে পারে। যখনই পরিচিত কেউ তার কাছে আসবে, খুশিতে তার চোখ বড় হয়ে উঠবে, হাসিতে আনন্দ উপচে পড়বে। এটা সামাজিকীকরণ বা সোশালাইজেশনের একদম শুরুর সময়। তাই ডিনার টাইমে শিশুকে সবার কাছাকাছি রাখার চেষ্টা করুন। সে এখন আপনার সঙ্গ উপভোগ করতে শিখেছে।

সপ্তাহ১১

এই সপ্তাহ থেকে শিশুর ঘুম আগে থেকে অনেকটা কমে যাবে, দিনের বেশিরভাগ সময়টা সে জেগে থাকবে। সে তার পরিবার ও পৃথিবী নিয়ে অদ্ভুত কিছু দুঃশ্চিন্তায় ভুগবে। মজার ব্যাপার হলো, এখন থেকে তার কিছু নিজস্ব ধ্যান ধারণা, পছন্দ অপছন্দ তৈরি হবে। আপনার পছন্দের খেলা বা খেলনাটি তার ভালো নাও লাগতে পারে। সে মাথা ঘুরিয়ে যেদিকে তাকাবে, বোঝা যাবে তার আকর্ষণ তখন সেই জিনিসটিতেই!

সপ্তাহ১২

এই বয়সের সবচেয়ে বড় আবিষ্কারটি হলো, শিশু তার আঙ্গুল এবং বৃদ্ধাঙ্গুলকে আলাদা হিসেবে বুঝতে পারে। শিশু দুই হাত ধরে মুখে ঢুকিয়ে টেস্ট করা শুরু করে এই সময় থেকে। আপনিও চাইলে তার এই মজার সময়টাতে অংশ নিতে পারেন, বাচ্চাকে ভেলভেট স্কার্ফ,  রাবার অথবা কাপড়ের খেলনা খেতে দিয়ে- শুধু লক্ষ্য রাখতে হবে সবকিছু যেন পরিষ্কার হয়।

চার মাস বয়সী শিশুর বিকাশ (সপ্তাহ ১৩সপ্তাহ ১৬)
সপ্তাহ১৩

বাচ্চাদের ঘুম নিয়ে কমপ্লিন পাওয়া যায় না, এমন হার খুব কম। চার মাসের শুরু থেকেই এই সমস্যা ধীরে ধীরে কমতে থাকবে। এতদিন সে আপনার কথাকে কেবলমাত্র সাউন্ড হিসেবে শুনতো, এখন শব্দগুলো সিলেবলে ভাগ হয়ে তার কানে আসবে। শব্দ করার সময় সেও এই সিলেবলগুলোকে ব্যবহার করার চেষ্টা করবে।

সপ্তাহ১৪

ঝুনঝুনি এবং মিউজিক্যাল খেলনার সময় অবশেষে শুরু হলো। এই ধরণের খেলনা হাত ও চোখের স্কিল ডেভেলপমেন্টে সাহায্য করে। এই বয়সী শিশুরা সাধারণত মাল্টিটেক্সচার্ড খেলনা, উজ্জ্বল রং, শব্দ করে এমন ধরণের খেলনা পছন্দ করে। সে খেলনা ধরে মুখে দেওয়ার চেষ্টা করে, জানেনই তো এই মুহূর্তে কোন কিছু শিখতে চাওয়ার জন্য এটাই তার সবচেয়ে পছন্দের উপায়!

সপ্তাহ১৫

চুপচাপ শুয়ে থাকার দিন শেষ! এই সপ্তাহ থেকে আপনার শিশু রোলিং বা এক পাশ থেকে আরেক পাশ হওয়া শুরু করবে। কখনও সামনে থেকে পেছনে, কখনও পেছন থেকে সামনে।

সপ্তাহ১৬

আপনার চার মাস বয়সী শিশুটি দিন দিন আগের থেকে শক্তিশালী হয়ে উঠছে। এখন তাকে উল্টে রাখলে সে তা খুব সহজে মেনে নাও নিতে পারে। বিকাশের এই স্টেজে টামি টাইম (পেট বিছানাতে লাগিয়ে উপুড় করে রাখা) তার গলা, ঘাড়, বুক, বাহুর পেশীর জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই মাসলগুলো শিশুর গড়ানো, হামাগুড়ি দেওয়া, বসা, দাঁড়ানো, তার দৃষ্টিকে আরও দূরে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে সাহায্য করে। এই সময়ে প্রিয়জনদের দেখলে শিশুরা হৈচৈ, কান্নাকাটি থামিয়ে ফেলে।

প্রতিটি শিশুই ইউনিক। তাই সবার বিকাশ একই রকমভাবে হবে না। কেয়ারগিভার হিসেবে আপনার যা যা করা উচিত তা করুন। অনেক সময় সঠিক স্টিমুলেশনের অভাবে শিশুর বিকাশ বাধাপ্রাপ্ত হয়। শিশুর কোনরকম শারীরিক সমস্যা মনে করলে পেডিয়াট্রিকস বা অকুপেশনাল থেরাপিস্টের সাহায্য নিন।

প্রথম পর্ব দেখুননবজাতকের বিকাশ-ধারাঃ বয়স যখন এক থেকে দুই মাস!

বাংলাদেশের প্রথম এবং একমাত্র সায়েন্স কিট অন্যরকম বিজ্ঞানবাক্স আপনার সন্তানের অবসর সময় সুন্দর করবে, এবং তার মেধা বিকাশে সাহায্য করবে। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন।

(বিজ্ঞানবাক্সের জন্য আর্টিকেলটি লিখেছেন-ওয়াসিফা জান্নাত)

657 total views, 1 views today

What People Are Saying

Facebook Comment