Show Categories

পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ ৫টি দেশীয় ফল; যা আপনার সন্তানের পুষ্টির চাহিদা মেটাবে!

ফল

আমাদের দেশে অগণিত পুষ্টিকর ফল পাওয়া যায়। গ্রাম অঞ্চলে বাড়ির আশেপাশেই এসব ফলের গাছ দেখা যায়। এসব ফল যেমন সুস্বাদু তেমনি পুষ্টিকর। এখন আপনার নিকটস্থ বাজারে একটু খুঁজলেই দেখা মিলবে বিভিন্ন টাইপের দেশীয় ফলের। বাহারি এসব ফলের মধ্যে আছে আম, কাঁঠাল, আতা, আনারস, কলা, সফেদা, বেল ইত্যাদি।

আসুন পাঁচটি দেশীয় ফলের পুষ্টিগুণ সম্পর্কে বিশদভাবে জেনে নিই   
১। ফলের রাজা আম  

আমাদের দেশে আম একটি জনপ্রিয় ফল। ফলের রাজা আম মূলত গ্রীষ্মকালীন ফল। আমাদের দেশে আম গাছকে জাতীয় গাছের প্রতীক হিসেবে ধরা হয়। বাংলাদেশের সব অঞ্চলেই আম জন্মে তবে রাজশাহী এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জে বেশি আম চাষ হয়। সুস্বাদু ফল আমের বিভিন্ন জাত আছে। তারমধ্যে ফজলি, ল্যাংড়া, গোপালভোগ, কাঁচামিঠা, আম্রপলি ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য। আমে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, এ, বি, রিবোফ্লাভিন, থায়ামিন এবং বিটা ক্যারোটিন ইত্যাদি আছে।

আম খেলে যেসব উপকার হয়ঃ

১। রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমে।

২। আমে বিদ্যমান ভিটামিন এ দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখে।

৩। এই ফল ক্যানসার প্রতিরোধে সাহায্য করে।

৪। শরীরে আয়রনের ঘাটতি পূরণ করতে সাহায্য করে।

৫। আমে উপস্থিত ভিটামিন সি দাঁতের ক্ষয় রোধ করে থাকে।

২। জাতীয় ফল কাঁঠাল

বাংলাদেশের জাতীয় ফল কাঁঠাল। বেশ বড় আকারের দেখতে এই ফলটির বিভিন্ন জাতের হয়ে থাকে। উঁচু জমিতে কাঁঠাল ভাল জন্মে। এক গাছেই অনেকগুলো কাঁঠাল ধরে। আমাদের দেশে কাঁঠালের যেসব জাত দেখা যায়, তা হলঃ খাজা, গালা এবং রসখাজা, হাজারী প্রভৃতি। কাঁচা কাঁঠাল রান্না করে খাওয়া যায়। বিভিন্ন অঞ্চলে কাঁচা কাঁঠালকে ‘এঁচোড়’ বলা হয়ে থাকে। এই ফলের পুষ্টিগুণ অনেক বেশি। এতে আছে আমিষ, ভিটামিন, ক্যালসিয়াম, সোডিয়াম, থায়ামিন, আয়রন, জিংক এবং রিবোফ্লাভিন ইত্যাদি।

কাঁঠাল খেলে যেসব উপকার হয়ঃ

১। কাঁঠালে প্রচুর ভিটামিন এ আছে এবং এই ভিটামিন রাতকানা প্রতিরোধ করে।

২। ১০০ গ্রাম কাঁঠালে ৩০৩ গ্রাম পটাশিয়াম উপস্থিত থাকে। পটাশিয়াম উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে থাকে।

৩।কাঁঠালে উপস্থিত ক্যালসিয়াম আমাদের দেহের হাড়ের গঠন ভূমিকা রাখে এবং হাড়কে শক্ত করে।

৪। এই ফলে চর্বিজাতীয় উপাদানের উপস্থিতি খুবই কম। ফলে এটা খেলে মেদ জমে না, ওজন বাড়ে না।

৫। কাঁঠালে উপস্থিত ভিটামিন সি দাঁতের মাড়িকে শক্ত করে, মুখের ঘা প্রতিরোধ করে থাকে।

৩। পুষ্টির আঁধার সফেদা ফল

আমাদের দেশের গ্রামীণ জনপদে অনেক সফেদা ফলগাছ জন্মে। খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রামে অনেক বেশী সফেদা ফলের আবাদ হয়। গাছপাকা মিষ্টি স্বাদের নরম এই ফলটি খেতে অনেক মজার হয়। আকারের ভিত্তিতে সফেদা ফল দুই টাইপের হয়ে থাকে, যেমন- বড় জাতের সফেদা আর ছোট জাতের সফেদা।

সফেদা ফল খেলে যেসব উপকার হয়ঃ

১। সফেদা ফলে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে গ্লুকোজ যা শরীরে শক্তি যোগায়।

২। এই ফলে উপস্থিত ভিটামিন এ রাতকানা প্রতিরোধ করে।

৩। শরীরের অতিরিক্ত ওজন কমাতে এই ফলটি কার্যকর ভূমিকা পালন করে।

৪। এই ফলে বিদ্যমান ক্যালসিয়াম হাড়ের গঠন মজবুত করে গড়ে তোলে।

৫। অনিদ্রা, উদ্বেগ, হতাশা, বিষণ্ণতা কমাতে এই ফলটি উপকারী ভূমিকা পালন করে থাকে।

আপনার সন্তান হতাশায় (Depression) ভুগছে না তো? কী করবেন?

সহজলভ্য ফল কলা

সারা বছরই বাজারে এই সহজলভ্য ফলটি পাওয়া যায়। আমাদের দেশে বিভিন্ন জাতের ও সাইজের কলা  জন্মে। এসবের মধ্যে চম্পা কলা, সবরি, সাগর কলা, ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য। প্রতিদিন সকালে একটি কলা খেলে সারাদিনের কাজের এনার্জি পাওয়া যায়। কলা দিয়ে বিভিন্ন ধরণের খাবার বানানো যায়, যেমন-কলার পিঠা, কলার চিপস প্রভৃতি।

কলা খেলে যেসব উপকার হয়ঃ

১। হজম শক্তি বৃদ্ধিতে কলা সহায়ক ভূমিকা পালন করে থাকে।

২। এই ফলে বিদ্যমান পটাশিয়াম শরীরের কর্মক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়।

৩। কলাতে বিদ্যমান ফাইবার রক্তে গ্লুকোজের ভারসাম্য রক্ষা করে।

৪। শরীরের অতিরিক্ত ওজন কমাতে এই ফলটি কার্যকর ভূমিকা পালন করে।

৫। মানসিক প্রশান্তি আনয়নে এবং বিষণ্ণতা দূর করতে কলা উপকারী ভূমিকা পালন করে।

উপকারী ফল বেল

আমাদের দেশে বেল একটি সহজলভ্য এবং পুষ্টিকর ফল। গ্রাম অঞ্চলে এই ফলটি ভাল জন্মে। আর পুষ্টিগুণে ভরা এ ফলটি বাজারে সুলভ মূল্যেই পাওয়া যায়। সারাদিনের ক্লান্তি দূর করতে বেলের শরবতের জুড়ি নেই। কাঁচা বা পাকা উভয়ই টাইপের বেলই শরীরের জন্য উপকারী।

বেল খেলে যেসব উপকার হয়ঃ

১। ডায়রিয়া, আমাশয় রোগ সারাতে বেল বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

২। বেল খেলে হজমশক্তি বাড়ে এবং কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়।

৩।  এই ফল জন্ডিস রোগ উপশমের ক্ষেত্রে কার্যকরী ভূমিকা রাখে।

৪। বেলে বিদ্যমান থায়ামিন এবং রিবোফ্লাভিন লিভার,হার্ট প্রভৃতি ভাল রাখে।

৫। বেল কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণ করে এবং আলসার নিরাময়ে উপকারী ভূমিকা পালন করে।

রোগ প্রতিরোধে পেয়ারার কার্যকর ভূমিকা!

বাংলাদেশের প্রথম এবং একমাত্র সায়েন্স কিট অন্যরকম বিজ্ঞানবাক্স আপনার সন্তানের অবসর সময় সুন্দর করবে, এবং তার মেধা বিকাশে সাহায্য করবে। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন।

পুষ্টিগুণে ভরা এসব ফল আপনার বাড়ন্ত বয়সের শিশুকে খেতে দিতে পারেন। মজাদার এই ফলগুলো সে তৃপ্তি সহকারেই খাবে এবং তার পুষ্টির চাহিদাও পূরণ হবে।

নিয়মিত এমন কন্টেন্ট পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

* indicates required




821 total views, 1 views today

What People Are Saying

Facebook Comment