চুম্বকের আকর্ষণ বিকর্ষণ ক্ষমতার জন্য চুম্বক সকলের প্রিয়, বিশেষ করে বাচ্চাদের কাছে খুব প্রিয়। বাচ্চারা আকর্ষণীয় এক্সপেরিমেন্ট ও এক্টিভিটির মাধ্যমে চুম্বকের চুম্বকত্ব ও চৌম্বকক্ষেত্র সম্পর্কে খুব সহজেই জানতে ও শিখতে পারে, মিলিয়ে নিতে পারে তাই বইয়ের পড়ার সাথে। আপনার সন্তানকে চুম্বকের সাথে পরিচয় করিয়ে দিতে কিছু প্লাস্টিকের খেলনা, কাঠ পেন্সিল, রাবার, স্টিলের চামচ, লোহার টুকরা ইত্যাদি একসাথে মিশিয়ে দিন। এবার  তাকে বাছাই করতে দিন কোন গুলো চুম্বককে আকর্ষণ করে আর কোন গুলো  আকর্ষণ করে না। এক্ষেত্রে আপনিও তাকে সাহায্য করতে পারেন। যে সকল বস্তুর আকর্ষণ, বিকষর্ণ ও দিক নির্দেশক ধর্ম আছে তাই চুম্বক।

বাস্তব জীবনের সাথে বিজ্ঞানকে মিলিয়ে নিয়ে সেই অনুযায়ী বাচ্চাদের শিক্ষা দিলে তারা তা উপভোগ করে এবং সহজেই শিখতে পারে। বিজ্ঞানের মৌলিক বিষয় গুলো এভাবে শেখানোর মাধ্যমে বাচ্চাদের শিক্ষা কার্যক্রমকে আরও ত্বরান্বিত করতে পারেন। এখানে এমন কিছু মজার কার্যক্রম আছে যা বাচ্চাদের চুম্বকের আশ্চর্যজনক বিষয়গুলি সম্পর্কে জানতে সাহায্য করবে।

আকর্ষণ ও বিকর্ষণ
প্রথমেই আপনার সন্তানকে জানিয়ে দেন চুম্বকের ২টা দিক/প্রান্ত বা মেরু থাকে। এবার তাকে লাল রং করা উত্তর মেরু ও, নীল রং করা দক্ষিণ মেরু সম্বলিত দুটি চুম্বক হাতে দিয়ে লাল ও লাল অংশে কে একত্রে মিশাতে বলুন। মিশছে না তাইতো? এবার তাকে নীল ও নীল অংশকে একত্রে মিশাতে বলুন, তাও হলনা। তার মানে চুম্বকের একই দিক (উত্তর-উত্তর বা দক্ষিণ-দক্ষিণ) কখন একসাথে মিশবে না তারা পরষ্পরকে বিকর্ষণ করবে। এবার তাকে লাল ও নীল রং করা অংশকে একত্রে মিশাতে বলুন। বাহ মিশে গেছে! তার মানে চুম্বকের বিপরীত মেরু পরষ্পরকে আকর্ষণ করে। প্রথম বার রং করা চুম্বক দিলেও পুনরায় করার জন্য রং না করা চুম্বক দিন। এভাবেই আপনার সন্তানকে খুব সহজেই মজার মাধ্যমে শেখাতে পারেন চুম্বকের আকর্ষণ-বিকর্ষণ সম্পর্কে।

বলরেখা
একটি সাদা কাগজ, লোহার গুড়া, একটি দণ্ড চুম্বক নিয়ে বসিয়ে দিন আপনার সন্তানকে। দণ্ড চুম্বকটি নিচে রেখে তার উপর সাদা কাগজ দিয়ে ঢেকে দিতে বলুন আপনার সোনামনিকে। এবার বাচ্চাকে নিজ হাতে লোহার গুড়া গুলো উপর থেকে ছিটিয়ে ফেলতে দিন কাগজের নিচে রাখা চুম্বকের উপর। এবার তাকে দেখান লোহার গুড়া গুলো নিচে রাখা চুম্বকের দু’প্রান্তের দু’দিকে বেশি জমা হয়েছে আর মাঝের দিকে অর্ধবৃত্তাকার সরু লাইন তৈরি হয়েছে যা বিজ্ঞানের ভাষায় চুম্বক বলরেখা নামে পরিচিত। লোহার গুড়া গুলো দু’প্রান্তে বেশি জমা হয়েছে কারন চুম্বকের দু’প্রান্তের শক্তি বেশি। সপ্তম শ্রেণীর বিজ্ঞান বইয়ের দশম অধ্যায়ে চুম্বক নিয়ে একটা বড়সড় অধ্যায় আছে। বইয়ের পড়ার সাথে সাথে প্রাকটিক্যাল করতে পারলে তা বুঝতে সহজ হয় এবং বেশি দিন মনে থাকে।

চুম্বক তৈরি ও বিনাশ!
স্টোর রুম থেকে একটি পেরেক আপনার সন্তানের হাতে দিন। পেরেকটি কিন্তু হাতুড়ি দিয়ে কোথাও ঠুকে দেওয়ার জন্য না। এবার সন্তানকে তার খেলনার মধ্য থেকে চুম্বকটি খুঁজে নিয়ে আসতে বলুন। ডান হাতে পেরেকটি নিয়ে বাম হাতে থাকা চুম্বকের উপর থেকে নিচে একই পদ্ধতিতে কয়েকবার ঘর্ষণ করে নিন। এবার হাতে থাকা পেরেকটি কিছু লোহার গড়ার সংস্পর্শ ধরতে বলুন। কী ঘটছে? দেখবেন, লোহার গুড়া গুলো লাফিয়ে লাফিয়ে পেরেককে স্পর্শ করতে চাচ্ছে। অর্থাৎ পেরেকটি চুম্বকের ন্যায় আচরণ করছে। তৈরি হয়ে গেল অস্থায়ী চুম্বক। কিন্তু হত্যা! ভয় পাওয়ার কিছু নাই। এজন্য দা, বটি, ছুরির কোন কিছুর দরকার নাই। তবে একটা মোমবাতি হলেই হবে। সাবধানতার জন্য মোমবাতিটি আপনি জ্বালিয়ে দিন। সাবধানতার সাথে হাতে থাকা নতুন তৈরি অস্থায়ী চুম্বকটি (পেরেকটি) মোমের আগুনে কিছুক্ষণ গরম করে নিন। পেরেকটি ঠাণ্ডা হলে আবার লোহার গুড়ার সংস্পর্শে অনলে দেখা যাবে পেরেকটি আর চুম্বকের ন্যায় আচরন করছে না। তার মানে চুম্বকত্ব নষ্ট হয়ে গেছে। এরই মাধ্যমে নিজের অজান্তে চুম্বক হত্যা হয়ে গেছে। চিন্তার কিছু নায় চুম্বক হত্যার দায়ে কোন শাস্তি পেতে হবে না।

আরো পড়তে পারেন-  বিজ্ঞানবাক্স গাইড!! কোন বিজ্ঞানবাক্সটি কাদের লাগবে?

ব্লেড দিয়ে দিক নির্ণয়!
দিক নির্ণয়ের কথা বললে প্রথমে আসবে কম্পাসের কথা, তারপর আরো অনেক প্রক্রিয়া। তবে মজার বিষয় হচ্ছে আপনার সন্তান ঘরে থাকা একটা নতুন ব্লেড দিয়ে খুব সহজেই দিক নির্ণয় করতে পারে! অবাক না হয়ে সন্তানকে বলুন রান্নাঘর থেকে এক বাটি পানি নিয়ে আসতে। প্যাকেট থেকে ব্লেডটি খুলে আলতো করে পানিতে ছেড়ে দিন। দেখবেন ব্লেডটি পানিতে না ডুবে ভেসে আছে। ব্লেডটি ঘুরে যখন স্থির হয়ে যাবে খেয়াল করলে দেখা যাবে সেটি দু’দিক মুখ করে দাঁড়িয়ে আছে। যার একদিক উত্তর অন্যদিক দক্ষিণ। কারণ ব্লেড একটি চুম্বকীয় পদার্থ। কিন্তু বাচ্চারা বুঝবে কি করে কোন দিক উত্তর আর কোন দিক দক্ষিণ। এটার জন্যও আছে সহজ সমাধান।  একটু খেয়াল করলে দেখা যাবে ব্লেডের দু’দিকে ‘N’ (উত্তর) ও ‘S’ (দক্ষিণ) লেখা আছে যা দেখে চেনা যাবে দিক।

আপনি নিজে প্রথম কবে চুম্বক নিয়ে এক্সপেরিমেন্ট করেছেন হয়তো তা খেয়াল নাই। তবে চুম্বক নিয়ে আপনার সন্তানের এক্সপেরিমেন্ট দেখে, খেলনা গাড়ি ভেঙ্গে চুম্বক বের করা দেখে ক্ষণিকের জন্য হলেও আপনি ফিরে পেয়েছেন ফেলে আসা শৈশব। আপনার সন্তানের শৈশব হোক শিক্ষণীয়।

আপনার সন্তান যেহেতু চুম্বক নিয়ে খেলছে, তাহলে খেলতে খেলতে যদি শেখা হয় মজার বিজ্ঞান, তো হোক না।  আপনার সন্তানের চুম্বকের এমন শিক্ষণীয় এক্সপেরিমেন্ট করতে হাতের কাছেই আছে অন্যরকম বিজ্ঞানবাক্সের চুম্বকের চমক। চুম্বকের চমক বিজ্ঞানবাক্স দিয়ে ২৬টি এক্সপেরিমেন্ট করতে পারবে।

BigganBaksho AD

শুধু চুম্বক দিয়ে এক্সপেরিমেন্ট নয়, এক্সপেরিমেন্ট করতে আরো আছে আলোর ঝলক, তড়িৎ তাণ্ডব, রসায়ন রহস্য, অদ্ভুত মাপজোখ ও শব্দকল্প বিজ্ঞানবাক্স, যা দিয়ে আপনার সন্তান করতে পারবে ২০০+ এক্সপেরিমেন্ট ও এক্টিভিটি। (বিজ্ঞানবাক্স সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন www.bigganbaksho.com  অথবা ফোন করুন 01847103102 নাম্বারে)

 

 

 

190 total views, 1 views today

What People Are Saying

Facebook Comment