Show Categories

শিশুদের জন্য শিক্ষণীয় ৫টি হলিউডের মজার সিনেমা

Bigganbaksho- Jungle book

শিশু কিশোরদের টিভি কিংবা কম্পিউটারে আসক্তি খুবই চিন্তার বিষয়। প্রায় প্রত্যেক বাবা মা তার শিশুর এই আসক্তি নিয়ে চিন্তিত। কিন্তু বর্তমান যুগে আপনি চাইলেও এই ধরনের প্রযুক্তি থেকে সন্তান কে দূরে রাখতে পারবেন না। তাই টিভি কিংবা কম্পিউটারকে কিভাবে শিশুর জন্য কার্যকরী করা যায় সেটা নিয়ে ভাবা যেতে পারে। যেমন হতে পারে ভালো কোন শিশুতোষ মজার সিনেমা যেটা দেখে শিশু ভাবতে শিখে এবং নষ্ট সময়কে কাজে লাগাতে পারে। তাই আজকে আমরা আন্তর্জাতিক ৫ টি বিখ্যাত শিশুতোষ জনপ্রিয় মজার সিনেমা নিয়ে আলোচনা করব। এই ধরনের মজার সিনেমা শুধু আপনার শিশুর জন্যই না, চাইলে আপনিও দেখতে পারেন এবং নষ্ট সময় কাজে লাগাতে পারেন।

১। ই.টি (E.T)

E.T

ই.টি দি এক্সট্রা টেরেস্ট্রিয়াল একটি আমেরিকান সায়েন্স ফিকশন ফ্যান্টাসি ছবি। ১৯৮২ সালে মুক্তি পাওয়া এই ছবি নির্মাণ করেন জনপ্রিয় পরিচালক স্টিভেন স্পিলবাগ। গল্পটি এলিয়ট নামের এক ছেলেকে কেন্দ্র করে এগিয়ে যায়। একদিন এলিয়টের সাথে দেখা হয় ভিনগ্রহের এক এলিয়নের। এলিয়ট ও এলিয়নের মধ্যে একটা বন্ধুত্তপূর্ণ সম্পর্ক তৈরি হয়। এদিকে সরকার এলিয়ন কে খুঁজতে থাকে কিন্তু এলিয়ট তাকে খুব গোপনে লুকিয়ে রাখে। এলিয়ন তার গ্রহে ফিরে যেতে চায় তাই এলিয়ট তাকে তার গ্রহে পৌঁছে দিতে সর্বোত্তম চেষ্টা করতে থাকে। এরি মধ্যে এলিয়ট ও এলিয়ন কে পড়তে হয় নানা রকম ঝামেলায়। এলিয়ন কে কি শেষ পর্যন্ত তার গ্রহে পৌঁছে দিতে পারে এলিয়ট? উত্তর জানতে এই মজার সিনেমা সম্পূর্ণ দেখতে হবে।

ই.টি দি এক্সট্রা টেরেস্ট্রিয়াল এক ঝলক দেখতে ক্লিক করুন

২। হোম এলোন (Home Alone)

হোম এলোন ১৯৯০ সালের আমেরিকান কমেডি ছবি, যেটি লিখেছেন জন হিউজেস ও পরিচালনা করেছেন ক্রিস কলম্বাস। ছবির গল্প কেভিন নামের এক বালক কে ঘিরে এগিয়ে যায়। গল্পে কেভিনের পরিবার খ্রিস্টমাসের ছুটিতে প্যারিস যায় কিন্তু ঘটনাচক্রে কেভিন বাড়িতে একা থেকে যায়। একপর্যায় বাড়িতে ঢুকে পরে দুই সিঁধেল চোর। কেভিন চোরের প্রবেশ টের পেয়ে মাথায় বুদ্ধি আটে কিভাবে এদের শায়েস্তা করা যায়। কেভিন ও সিঁধেল চোর মুখোমুখি। ঘটতে থাকে মজার মজার সব ঘটনা। চোর হয়ে উঠে প্রতিশোধ প্রবণ। যেভাবেই হোক কেভিন কে ধরতে চায় তারা। তারপর কি হয়..? জানতে হলে দেখতে হবে দারুন এই মজার সিনেমাটি।

হোম এলোন সিনেমার এক ঝলক দেখতে ক্লিক করুন 

৩। ওয়াল-ই (Wall-E)

ওয়াল-ই ২০০৮ সালে মুক্তি পাওয়া আমেরিকান সায়েন্স ফিকশন এনিমেশন চলচ্চিত্র যেটি পরিচালনা করেছেন এন্ড্রু স্টানটন। পরিবেশ সংরক্ষন, করপোরেট ও ভোগবাদের মতো শক্ত বিষয় নিয়ে ছবিটি তৈরি হলেও বেশ মজা করে দেখার মত একটি ছবি এটি। পৃথিবী যখন মানুষের বসবাসের অযোগ্য হয়ে যায় তখন ওয়াল-ই নামক এক রোবট থেকে যায় সেখানে যার কাজ ময়লা পরিষ্কার করা। ঠিক তখনই ইভ নামে আরেক রোবট মহাকাশ থেকে আসে পৃথিবীতে প্রানের অস্তিত্ব অনুসন্ধানে। ওয়াল-ই আর ইভ-এর দেখা হয়। প্রথম দেখায় ইভকে বেশ রাগী মনে হলেও ধীরে ধীরে ওয়াল-ই আর ইভ বন্ধু হয়ে যায়। একদিন আবর্জনা ঘাটতে গিয়ে ছোট্ট একটি গাছ খুঁজে পায় ওয়াল-ই। সে গাছটি ইভ-কে দেখায়। সাথে সাথেই গাছটি নিজের মাঝে নিয়ে নেয় ইভ এবং অপারেট করা বন্ধ করে দেয় সে। ওয়াল-ই খুব চেষ্টা করে ইভকে চালু করার, কিন্তু পারে না। এমন সময় মহাকাশ থেকে একটি অপারেটেড শিপ এসে হাজির হয় ও নিয়ে যায় ইভকে। ওয়াল-ই ভাবে, হয়তো ইভকে কিডন্যাপ করে নিচ্ছে অপারেটেড শিপটি, তাই শিপ ধরে ঝুলে পড়ে ওয়াল-ই। মহাশূন্যের মধ্য দিয়ে যেতে যেতে তারা একটি অন্যরকম গ্রহে গিয়ে পৌঁছায়। এরপর শুরু হয় দুর্দান্ত এক অ্যাডভেঞ্চার।

ওয়াল-ই সিনেমার এক ঝলক দেখতে ক্লিক করুন

৪। হুগো (Hugo)

বিখ্যাত আমেরিকান চলচ্চিত্র পরিচালক মারটিন স্করসিস ২০১১ সালে ঐতিহাসিক অ্যাডভেঞ্চার ড্রামা নির্ভর চলচ্চিত্র হুগো নির্মাণ করেন। গল্পটি ১২ বছরের এক বালক হুগো কে কেন্দ্র করে এগিয়ে যায়। হুগো ও তার বাবা প্যারিসে এক রেলস্টেশনে থাকে। একদিন হুগোর বাবা একটা ভাঙা মেশিন খুঁজে পায়। হুগো ও তার বাবা মেশিনটি মেরামত করতে চেষ্টা করে। কিন্তু দুর্ঘটনাবশত হুগোর বাবা মারা যায়। একপর্যায়ে হুগো বাবাকে ছাড়া নানা রকম বিপদের সম্মুখীন হয়। কিন্তু শত বাধা থাকলেও হুগো লোকচক্ষুর আড়ালে গিয়ে ঠিকই ভাঙা মেশিনটি ঠিক করতে চেষ্টা করে। হুগো কি পারে শত বাধা সত্তেও মেশিনটা ঠিক করতে? জানতে হলে শেষ পর্যন্ত চলচ্চিত্রটি দেখতে হবে।

হুগো সিনেমার এক ঝলক দেখতে ক্লিক করুন 

৫। দি জঙ্গল বুক (The Jungle Book)

জন ফেভ্রু পরিচালিত ফ্যান্টাসি অ্যাডভেঞ্চার ধরনের চলচ্চিত্র দি জঙ্গল বুক ২০১৬ সালে মুক্তি পায়। ছবির গল্প এক এতিম মানব শিশু মোগলি কে নিয়ে এগিয়ে যায় যার বেড়ে উঠা জঙ্গলে। বলতে গেলে জঙ্গলে নেকড়ে সমাজ মোগলিকে তাদের নিজের শিশুর মত কোলে পিঠে মানুষ করে। মোগলি নিজেকে জঙ্গলের সাথে দারুনভাবে মানিয়ে নেয়। কিন্তু এর মাঝেই বাধা হয়ে দাঁড়ালো দুষ্ট বাঘ। দুষ্ট বাঘের নজরে পরে মোগলি। দুষ্ট বাঘ নেকড়েদের জানিয়ে দেয় মোগলিকে তার কাছে খেতে না দিলে সে কাওকে শান্তিতে থাকতে দিবে না। তাই নেকড়ে সমাজ সিদ্ধান্ত নিলো যেভাবেই হোক মোগলিকে মানুষের সমাজে ফিরিয়ে দিতে হবে। মোগলি ও নেকড়ে মিলে নেমে পরে মানুষের সমাজে ফিরে যাবার অভিযানে। কিন্তু দুষ্ট বাঘ পিছু ছাড়ে না কোন ভাবে। মোগলিকে পড়তে হয় নানা রকম বিপদের মুখে। শেষ পর্যন্ত কি মোগলি ফিরে যেতে পারে মানুষের কাছে? জানতে হলে দেখতে হবে জঙ্গল বুক ছবিটি।

দি জঙ্গল বুক সিনেমার এক ঝলক দেখতে ক্লিক করুন

আরও পড়ুন-

শিশুদের জন্য শিক্ষণীয় ৫টি বাংলাদেশী সিনেমা।

শিশুদের জন্য শিক্ষণীয় ৫টি মজার টিভি সিরিজ।

বাংলাদেশের প্রথম এবং একমাত্র সায়েন্স কিট অন্যরকম বিজ্ঞানবাক্স আপনার সন্তানের অবসর সময় সুন্দর করবে, এবং তার মেধা বিকাশে সাহায্য করবে। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন।

 

597 total views, 1 views today

What People Are Saying

Facebook Comment