শিশুকে সঠিকভাবে খাওয়ানোর পরিমাণ ও এই নিয়মগুলো আপনার জানা আছে কি?

ফর্মুলা মিল্ক- Bigganbaksho

একজন নতুন মায়ের জন্য শিশুকে খাওয়ার সময় ও পরিমাণ ঠিক করা বেশ চিন্তার বিষয়। শিশুরা তাদের চাহিদার কথা জানাতে পারে না। সেজন্য মায়েরই একটা নিয়ম অনুসরণ করে শিশুকে খাওয়াতে হয় ও পরিমাণ মত তাদের খাদ্য চাহিদা পূরণ করতে হয়। ফলে শিশুদের কম খাওয়ার বা বেশি খাওয়ার চিন্তা থাকে না। বিজ্ঞানবাক্সের আজকের ব্লগে আমরা ১ বছর বয়স পর্যন্ত শিশুদের খাবারের নিয়ম ও পরিমাণ সম্পর্কে জানবো।

০-৫ মাস বয়সী শিশুর খাবারের তালিকা ও নিয়ম

০-৫ মাস বয়সী শিশুদের খাবারের তালিকা (মায়ের বুকের দুধ)

বয়সদিনে যতবার খাওয়াবেন
০-২ মাস৮-১২ বার বা তার বেশি
২-৪ মাস৮-১০ বার বা তার বেশি
৪-৫ মাস৬-৮ বার বা তার বেশি

মনে রাখবেন
• শিশুর পেট ছোট হওয়ার কারণে এই সময়ে শিশু পরিমাণে কম খায় কিন্তু ঘন ঘন খায়। সেজন্য শিশুকে কম করে কিন্তু ঘন ঘন খাওয়াতে হবে।
• বুকের দুধ তাড়াতাড়ি হজম হয়। সেজন্য শিশু ঘন ঘন ক্ষুধার্ত হয়ে যেতে পারে।
• এই সময়ে শিশু প্রতি ৩-৪ ঘন্টা ঘুমানোর পর ১-২ ঘন্টা জেগে থাকে। জেগে থাকা সময়টাতে তাকে খাওয়ানোর চেষ্টা করুন।
• শিশু ঠোঁট চোষা, আঙ্গুল চোষা, ঘন ঘন হা করা অথবা কাঁদা এইসব লক্ষণ দেখলে তাকে দুধ খাওয়াতে হবে। তবে চেষ্টা করা উচিত শিশুকে যেন কান্নার আগেই খাওয়ানো যায়।
• এই সময়টাতে শিশুকে মায়ের দুধ ছাড়া বাড়তি কোন খাবার দেয়া যাবে না।
• রাতে প্রতি ৪-৫ ঘন্টা পর পর শিশুকে বুকের দুধ খাওয়াতে হবে।

৬-৮ মাস বয়সী শিশুর খাবারের তালিকা ও নিয়ম

৬ মাস থেকে শিশুদেরকে মায়ের বুকের দুধের পাশাপাশি কিছু বাড়তি খাবার দেয়া উচিত। চলুন জেনে নিই, ৬-৮ মাস বয়সী শিশুর খাবারের তালিকা কেমন হবে।

৬-৮ মাস বয়সী শিশুর খাবারের তালিকা

খাবারপরিমাণ (প্রতিদিন)
বুকের দুধ৪-৬ বার প্রতিদিন
ফর্মুলা মিল্ক (বুকের দুধের পাশাপাশি দেয়া যেতে পারে)১৭০-২৪০ মিলি প্রতিদিন (৪-৫ বারে)
সবজীর স্যুপ৪-৮ টেবিল চামচ বা চাহিদা অনুযায়ী বেশি
ফলের স্যুপ৪-৮ টেবিল চামচ বা চাহিদা অনুযায়ী বেশি
প্রোটিন সমৃদ্ধ স্যুপ (মাংস, মাছ, ডিম, মটরশুটি ইত্যাদি)১-৬ টেবিল চামচ বা তার বেশি
বেবি সিরিয়াল৪-৮ টেবিল চামচ বা তার বেশি

মনে রাখবেন
• এই সময়ে শিশুকে বাড়তি খাবারের সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়া উচিত।
• বাড়তি খাবার দেয়ার সময় অল্প পরিমাণে (টেবিল চামচে করে) পানি খাওয়াতে পারেন।
• বাড়তি খাবার খাওয়ানোর সময় জোর করা যাবে না। ধীরে ধীরে চেষ্টা করতে হবে।
• শিশু বাড়তি খাবার খেতে না চাইলেও খাবারে চিনি অথবা লবণ মেশানো যাবে না।
• শিশুকে খাওয়ানোর জন্য নরম টেবিল চামচ ব্যবহার করুন।

৯-১২ মাস বয়সী শিশুর খাবারের তালিকা ও নিয়ম

এই সময়ে সন্তানকে নিজের হাতে খেতে দেয়া উচিত। বুকের দুধের সাথে ফর্মুলা মিল্ক ও অন্যান্য বাড়তি খাবার দিতে হবে।

৯-১২ মাস বয়সী শিশুর খাবারের তালিকা

খাবারপরিমাণ (প্রতিদিন)
ফর্মুলা মিল্ক (যে একদমই বুকের দুধ খায় না তার জন্য)১৭৫-২৪০ মিলি করে দিনে ৪-৫ বার
সবজীআধা কাপ করে দিনে ২-৩ বার
ফলআধা কাপ করে দিনে ২-৩ বার
দই অথবা পনিরকোয়ার্টার কাপ করে দিনে ১-২ বার
প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবারকোয়ার্টার কাপ করে দিনে ১-২ বার
বেবি সিরিয়াল৪-৮ টেবল চামচ বা তার বেশি
বুকের দুধ৪-৬ বার বা তার বেশি

মনে রাখবেন
• শিশুদের স্যুপের পাশাপাশি ফলকে কেটে ছোট টুকরা করেও দিতে পারেন।
• এবার শিশুকে নিজে হাতে খেতে দিতে পারেব।
• পরিবারের সবার সাথে একসাথে বসে খাবার অভ্যাস এই সময়ে করানো যেতে পারে।
• শিশুদেরকে বোতলজাত বেভারেজ, বোতলজাত জুস ও টিনজাত কোন খাবার না দেয়া ভালো। এইসব খাবারে চিনি ও লবণের পরিমাণ বেশি থাকে।
• এক বছরের আগে শিশুদের গরুর দুধ খাওয়ানো যাবে না। গরুর দুধের প্রোটিন শিশুর হজম করতে কষ্ট হয়।
• শিশুদের জোর করে খাওয়ানো যাবে না।

অনেক মায়েরাই বিভিন্ন সমস্যার কারণে সন্তানকে বুকের দুধ খাওয়াতে পারেন না। সেক্ষেত্রে শিশুকে পর্যাপ্ত পরিমাণ ফর্মুলা মিল্ক ও অন্যান্য খাবার দিতে হবে। আগামী  পর্বে আমরা শিশুকে ফর্মুলা মিল্ক খাওয়ানোর নিয়ম সম্পর্কে জানবো।

আরো পড়ুন-সোনামণিদের হ্যাপি মিলটাইমের দশটি কার্যকরী টিপস

তথ্যসূত্র-momjunction

বাংলাদেশের প্রথম ও একমাত্র সায়েন্স কিট “অন্যরকম বিজ্ঞানবাক্স” সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন।

2 total views, 1 views today

What People Are Saying

Facebook Comment