INFP প্রোফাইল-বই আর অনুভূতি দ্বারা যারা আবৃত থাকে

INFP প্রোফাইল

পৃথিবীতে সাতশ কোটি মানুষ আছে। সব মানুষের কিন্তু রয়েছে আলাদা আলাদা ধরণ। জানার, শেখার, সিদ্ধান্ত নেয়ার, জীবনবোধের আলাদা আলাদা ধরণ ও শক্তির জায়গা আছে সবার। আছে আলাদা আলাদা পার্সোনালিটি টাইপ । কেউ সবসময় আড্ডা দিতে পছন্দ করে, কেউ নিজের মাঝে থাকতে। কেউ খেলতে পছন্দ করে তো কেউ বই পড়তে, কেউ বা পছন্দ করে লিখতে। কেউ হুট করে সিদ্ধান্ত নিয়ে নেয় তো কেউ সিদ্ধান্ত নেয় ভেবে চিন্তে। এবং এই আলাদা ধরণটা তারা জন্মগতভাবে অনেকটা  প্রকৃতিগতভাবে পেয়ে থাকে। এই আলাদা আলাদা মানুষের আলাদা আলাদা শক্তির জায়গাকে কাজে লাগানোর জন্য আমেরিকান শিক্ষাবিদ ক্যাথেরিন কুকস ব্রিকস ও তার মেয়ে ইসাবেলা ব্রিকস মায়ার পৃথিবীর সব মানুষকে ১৬ টা আলাদা আলাদা ক্যাটাগরিতে ফেললেন একটা পরীক্ষার মাধ্যমে। আর ক্যাটাগরি অনুযায়ী ঠিক করলেন কোন ধরণের মানুষের ভেতর থেকে কীভাবে তার সেরাটা বের করে আনা যাবে! আর তারা দুজন একই কাজটা করলেন বাচ্চাদের জন্য। পরীক্ষার মাধ্যমে বাচ্চাদের পার্সোনালিটি প্রোফাইল বের করে সে প্রোফাইল অনুযায়ী তারা দুজন মিলে বাচ্চাদের মাঝ থেকে সেরাটা বের করে আনার জন্য অনেকগুলো পরামর্শ বা কৌশল বের করেছেন। বের করেছেন, কোন ধরণের বাচ্চার সাথে কীভাবে আচরণ করতে হবে তাও। এক কথায় বলতে গেলে, শেখার বা সফল করার একটা ন্যাচারাল উপায় তিনি বাতলে দিয়েছেন। লিখেছেন একটি বইও। এই মহান শিক্ষাবিদের সেই বই অবলম্বনে আমরা বিজ্ঞানবাক্স ব্লগের পাঠকদের জন্য একটা সিরিজ লেখা শুরু করেছি। আগের ব্লগের মাধ্যমে আপনি আপনার সন্তানের পার্সোনালিটি টাইপ বের করতে পারবেন। আর আমরা ধাপে ধাপে সব পার্সোনালিটির বাচ্চাদের জন্য আপনাকে পরামর্শ দিবো ও জানাবো আপনার বাচ্চার সেরাটা বের করে আনার জন্য আপনার ভূমিকা কেমন হতে হবে। আপনার বাচ্চার পার্সোনালিটি প্রোফাইল জানা না থাকলে জেনে নিন আমাদের এই টেবিলটা দেখে। আর আজকে জেনে নিন  INFP প্রোফাইল এর বাচ্চাদের জন্য পরামর্শ।

INFP প্রোফাইল

দেখা, করা, শোনা, ভাবা সবকিছুর সাথে যার অনুভূতি গভীরভাবে যুক্ত সেইই একজন INFP। সে কোন বয়সের INFP প্রোফাইল এর বাচ্চাকে ডিল করার সময় আপনাকে আগে মনে রাখতে হবে তারা তাদের অনুভূতি দ্বারা একপ্রকার মোড়ানো থাকে। প্রায় সবকিছুকেই তারা ব্যাক্তিগতভাবে নিয়ে নেয়। অনেক বেশি স্পর্শকাতর হয়। তাদের পৃথিবীর সবকিছুকে নিজের অবস্থান থেকে নিজের ইউনিক চিন্তার মাধ্যমে দেখতে পছন্দ করে। গাছের প্রাণ আছে, তার অনুভূতি শক্তি আছে। এটা আমরা সবাই জানি। কিন্তু চিন্তায় সেটা পুষতে পারি না হয়তো। একজন INFP প্রোফাইল ধারী হলো সেই মানুষ যে চিন্তায়ও এমন অনুভুতিগুলোকে পুষতে পারে। একটা খেলনা দিয়ে অনেক দিন যাবত খেলার ফলে সেই খেলনার সাথেও তার একটা ব্যাক্তিগত যোগাযোগ তৈরি হয়ে যায়। খেলনায় কোন সমস্যা হলে তারও মন খারাপ হয়ে যায়। সোজা কথায়, পৃথিবীর সবকিছুকে তারা গভীর অনুভূতির সাথে গ্রহণ করবে।

প্রি-স্কুলার INFP (বয়স ০-৪ বছর)

জীবনের শুরু থেকে একজন INFP প্রোফাইলের বাচ্চারা বাবা-মায়ের সাথে আষ্ঠেপৃষ্ঠে জড়িয়ে থাকতে চায়। পরিবারের বাইরের কারো সাথে মিশতে তারা খুব একটা স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে না। কখনো কখনো তাদের জন্য সম্পূর্ণ অপরিচিত কোন পরিবেশ, অপরিচিত কোন পরিবেশে নিজে নিজে মানিয়ে নেয়া অনেক বেশি কঠিন। এবং এটা সবচেয়ে বেশি প্রতিফলিত হবে প্রি-স্কুল এইজে। এমন কী তারা যখন অন্য শিশুদের সাথে খেলবে তখন তারা চাইবে তাদের বাবা-মা তাদের পাশে দাঁড়িয়ে থাকুক। তারা বাইরের পৃথিবীর সাথে সরাসরি যুক্ত হতে সচরাচর চাইবে না,যদি কখনো তা করতে হয় তখন তারা সাথে বাবা-মাকে চাইবে। সহজ কথায় বললে, বাইরের পৃথিবীর সাথে কোন কারণে তাদের মিশতে হলে তারা বাবা-মার কোলে বসেই তা করতে চাইবে।। বাবা-মা বা তার কাছের কারো খুব স্বল্প সময়ের অনুপস্থিতিও তাদের কাছে বেদনার মনে হবো। তবে তারা অন্যদের সথে মিশতে কিছুটা চ্যালেঞ্জ অনুভব করলেও নতুন খেলানার প্রতি তাদের অনেক আগ্রহ থাকে।

INFP রা নিজেদের অনুভূতিকে কিছুটা লুকিয়ে রাখে। খুব বিশ্বস্ত বা আপন কেউ না হলে তারা তাদের অনুভূতি কখনো প্রকাশ করে না। কারোর প্রতি তার কোন রাগ বা খারাপ লাগা কাজ করলেও সে তা লুকিয়ে রাখে। তারা সাংঘর্ষিক কোন কিছুতে যেতে চায় না। তাই অন্যের প্রতি তার কোন নেতিবাচক অনুভূতি প্রকাশ করে কম। এর ফলে তার আশেপাশের মানুষরা তার সম্পর্কে কিছু ভুল ধারণা পোষণ করতে পারে। তারা একই সাথে কারোর খারাপ লাগা নিয়ে চিন্তিত থাকে। তার আশেপাশের কারো খারাপ লাগা, তার পরিচিত মানুষজনের সাথে রাগ, অভিমান তাকেও কিছুটা তাড়িত করে।

INFP প্রোফাইল এর বাচ্চারা নিজের ভালো লাগার জায়গায়, নিজের সাচ্ছন্দ্যের জায়গায় থাকতে বেশি পছন্দ করে। কোন পরিবেশ যদি তার কাছে ভালো না লাগে বা তার নিজের মতো না হয় তাহলে সে সেখান থেকে নিজেকে সরিয়ে নেয়। তারা সমবয়সী ও ছোট বাচ্চাদের সাথে খেলতে ভালোবাসে এবং তাদের প্রতি অনেক যত্নবানও হয়। একই সাথে তারা এগ্রেসিভ বা একটু চটপটে বাচ্চাদেরকে এড়িয়ে চলে। তারা অতিরিক্ত ভীড়, বড় গ্রুপ, হইহুল্লোড় ইত্যাদিতে খুব একটা যুক্ত হয় না। এমন কোন পরিবেশে নিজেকে আবিষ্কার করলে সেখান থেকে দ্রুত নিজেকে সরিয়ে নেয়। বড় INFP প্রোফাইল এর মানুষও কোন ধরণের গ্যাদারিং পছন্দ করে না। তারা ওয়ান ওয়ান ইন্টারেকশনেই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে। মানে তার পছন্দের একজন অথবা দুজন মানুষের সাথে আড্ডা দিতে, খেলতে পছন্দ করে।

একা একা নিজের মনে খেলাও তাদের একটা পছন্দের কাজ। নিজের ভেতর থেকে  ও নিজের কল্পনাশক্তি থেকে নিজের মতো করে একটা পরিবেশ তৈরি করে, এবং তার বানানো পরিবেশে বিচরণও করে। তারা খেলনা ও নিজের পোষা প্রাণীর সাথেও খেলতে পছন্দ করে অনেক। INFP প্রোফাইল’রা অনেক সৃজনশীল ও শৈল্পিক মানসিকতার হয়ে থাকে। তারা সাধারণত অপ্রচলিত কোন খেলা কিংবা নিজের বানানো কোন নতুন ধরণের খেলা নিয়ে পড়ে থাকতে ভালোবাসে। সাধারণত তাদের গান শুনতে ও পড়তে ভালো লাগে। তাদের ভেতর একটা বেশ ভালো গুণ আছে, তারা তাদের পছন্দের কোন কিছু নিজে নিজে করতে চেষ্টা করে। গান শুনে কোন গান ভালো লাগলে তা নিজে নিজে করার চেষ্টা করে। পড়ার ক্ষেত্রেও তাই। বই পড়া তাদের অন্যতম ভালোলাগার কাজ। বিশেষ করে অপ্রচলিত গল্পের বই যেমন-থ্রিলার, রুপকথা, মিথ ইত্যাদি পড়তে ভালোবাসে। অ্যানিমেটেড ক্যারেকটার গুলোর প্রতিও তাদের একটা বিশেষ আগ্রহ থাকে। তারা দ্রুত পড়তে পারে ও বই পড়া তাদের একটা প্যাশেনেট কাজে পরিণত হয়। তারা গল্প বলতে, লিখতে, নিজের মত করে বানাতে পছন্দ করে। কেউ তার গল্প শোনার জন্য আগ্রহ দেখালে সে গল্প বলতে ও জানাতে পছন্দ করে। তাদের গল্পের একটা মজার বিষয় হলো-তারা হ্যাপি এন্ডিং পছন্দ করে। তাদের গল্পগুলো দেখা যাবে অনেক বেশি গোছানো ও সুন্দর। পড়ার প্রতি তাদের একটা বিশেষ আগ্রহ থাকার কারণে তাদের ভাষাজ্ঞান অনেক প্রখর হয়। নিজের মতো করে সবকিছুকে দেখতে পারে। কিন্তু মজার বিষয় হলো, তারা প্রায় নিজের ভেতর হারিয়ে যায়। তখনই মূলত তাদের ভেতর থেকে অনেক কিছু বের হয়ে আসে।

তারা প্রচলিত নিয়মের মধ্যে থাকতে পারে না তেমন। একই কারণে তারা প্রচলিত খেলাধুলাও তেমন একটা পছন্দ করে না। বরং নিজের মতো করে খেলা বানাতে ও ফ্যান্টাসি নিয়ে ভাবতে সে পছন্দ করে। তাদের বানানো খেলা ও ফ্যান্টাসি অনেক অদ্ভূত মনে হবে, তবে একই সাথে সেগুলো অনেক সুন্দর মনে হবে। তারা কোন সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে বেশ ভালোভাবে সম্ভাব্য সবগুলো অপশন জেনে নিবে। যদিও জেনে নেয়ার পরও তারা কিছুটা সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগবে।

INFP দের অধিক অনুভূতি প্রবণতার জন্য তারা প্রায় আপসেট হয়ে পড়ে। অনেক সময় অনেক ছোট ছোট কারণেও তারা এতটাই আপসেট হয়ে পড়ে যে, অনবরত কাঁদতে থাকে। কখনো কখনো তার রাগ, অভিমান, কান্না আপনার কাছে যুক্তিহীন মনে হতে পারে। কিন্তু সে আসলে অনেক বেশি অনুভূতি প্রবণ হওয়ায় নিজের এই প্রবণতা নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না। একটা ছোট ধমকেও সে চুপসে যেতে পারে, কেঁদে ফেলতে পারে। সেজন্য যুক্তি না খুঁজে তার মতো করে তার সাথে মিশতে হবে। যদি কোন কারণে সে এমন একটা পরিবেশে পড়ে যায়, এমন কোন অনাকাঙ্খিত আচরণ তার সাথে ঘটে যায় তাহলে একটু ভালোভাবেই তাকে এই পরিবেশ থেকে বের করে আনতে হবে। “একটু মন খারাপ, পরে ঠিক হয়ে যাবে” এই চিন্তা INFP দের ক্ষেত্রে করা যাবে না। আপনার এই চিন্তা তাকে আরো অনেক বেশি কষ্ট দিবে ও সে আরো বেশি করে চুপসে যাবে। তাকে এই সময়ে একটু বেশি ভালোবাসা দিন। আহ্লাদ করুন, জড়িয়ে ধরুন, আদর করুন, চুমু খান, মজা করুন! তাকে স্বাভাবিক করুন দ্রুত!

স্কুল গোয়িং INFP (বয়স ৫-১০ বছর)

স্কুল এইজে এসে INFP বাচ্চারা নিজেকে জানার, নিজেকে পড়ার একটা বিশাল সু্যোগ পায়। বই পড়ার গুণটা তাদের মাঝে আগে থেকেই থাকে। স্কুল এইজে এসে সে গুণটা প্যাশনে রুপ নেয়। তারা স্বাধীনভাবে পড়তে চায়, নিজের আগ্রহের সবকিছু নিয়ে পড়তে, জানতে ভালোবাসে। এই সময়ে লাইব্রেরির সাথে তার দারুণ একটা সম্পর্ক তৈরি হয়। গল্প, উপন্যাস, থ্রিলার, সিরিজ, রুপকথা, ফ্যান্টাসি এইসব বইয়ের প্রতি এদের অনেক আগ্রহ থাকে। তারা পৃথিবী সম্পর্কে জানতেও শুরু করে এই সময়ে এবং এটা তাদের বেশ পছন্দের অভ্যাসে পরিণত হয়। আন্তর্জাতিক রাজনীতি, ভাষা, বিভিন্ন ঐতিহ্য, সংস্কৃতি ইত্যাদি সম্পর্কে জানতে পছন্দ করে তারা। খুব ছোটবেলা থেকেই তারা বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে জানতে ও তার সমাধান নিয়ে ভাবতে পছন্দ করে। সেই সমস্যা বৈশ্বিক ইস্যু হতে পারে, সামাজিক ইস্যু হতে পারে, হতে পারে আশপাশের পরিবেশের কোন সমস্যা। মজার বিষয় হলো সে যা পড়ে, জানে তা সে তার রিয়েল লাইফের সাথে কানেক্ট করতে চায়।

INFP দের শৈল্পিক সত্তাটারও বিকাশও ঘটে এই সময়টাতে। তারা ক্রিয়েটিভ ও ভিন্নধারার গল্প লেখা, সাহিত্য, কার্টুন ও আর্টের অন্যান্য শাখাতেও আগ্রহী হয়। বেশিভাগ INFP অনেক হিউমার সমৃদ্ধ হয়! তাদের হিউমার আপনাকে কখনো কখনো মুগ্ধ করতে বাধ্য। শিল্প, সাহিত্য, আর্ট, হিউমার এমন ক্রিয়েটিভ বিষয়ে তার জ্ঞান বয়সের চেয়ে অনেক এগিয়ে থাকে। মেটাফোর, সাইকোলজিক্যাল অ্যানালজি ইত্যাদিতে তাদের জ্ঞানের পরিসর বাড়তে থাকে।

তারা সাধারণত তাদের ঘরানার বন্ধু বানাতে পছন্দ করে। কারণ নিজের ঘরানার বন্ধুদের সাথে সে তার ফ্যান্টাসি নিয়ে আলোচনা করতে পারবে। তাদের একসময়ে একটা বেস্টফ্রেন্ড থাকে। কিন্তু বেস্ট ফ্রেন্ডের সংখ্যা ধীরে ধীরে বাড়ে। তারা যেখানেই যায় সেখানেই একটা বেস্টফ্রেন্ড বানাতে চেষ্টা করে। কারণ তারা তাদের ফ্যান্টাসি নিয়ে আলোচনা করতে চায় তাদের আপন কারোর সাথেই। একই সাথে তারা সম্পর্কের ব্যাপারে শ্রদ্ধাশীলও হয়ে থাকে। তবে তাদেরকে দেখলে কিছুটা মুডি মনে হতে পারে। আসলে তাদের ইন্ট্রোভার্ট নেচারের জন্য এবং কাছের কেউ ছাড়া অন্যদের সাথে মিশতে অনীহার কারণে তাদেরকে এমন মনে হতে পারে।

স্কুল গোয়িং INFP দের মাঝে একটা কৌতূহলী মন থাকে। তারা জানতে চায়, শিখতে চায় ও করতে চায়। তারা প্রচুর প্রশ্ন করে ও সৃজনশীল কিছু করতে চায়। তাদের একটা সমস্যা হলো, তারা রুটিন খুব একটা পছন্দ করে না। একটু অগোছালো থাকে। হোমওয়ার্ক, খেলাধুলা সব মিশিয়ে ফেলে। সেজন্য তাদের কোন প্রজেক্ট বা হোমওয়ার্ক অনেকক্ষেত্রে মাঝপথে আটকে যায়। শেষ করতে পারে না তেমন। ডেডলাইনের প্রতি কিছুটা উদাসীন থাকার ফলে তাদের মাঝে কিছু অনিয়ম লক্ষ করা যায়। সময় মতো স্কুলে যাওয়া, সময় মতো খাওয়া, ঘুমানো, হোমওয়ার্ক শেষ করা ইত্যাদিতে এরা অভ্যস্ত হতে পারে না। নিজের ভেতর ডুবে থাকার কারণে তারা অনেক সময় তার চারপাশে কী ঘটছে তা তেমন খেয়াল করে না, চারপাশ নিয়ে তেমন একটা চিন্তিতও থাকে না । তারা কিছুটা ভুলোমনাও হয়। স্কুলে যাওয়ার সময় ব্যাগে টিফিন বক্স নিতে ভুলে যায়, হোমওয়ার্ক নিতে ভুলে যায়। তাদেরকে সময়ের ব্যাপারে একটু মনে করিয়ে দিতে হবে। কোন কাজ বাকি আছে কিনা? কোথায় যাওয়ার সময় সব ঠিকঠাক নিয়েছে কিনা? এইসব তাকে একটু মনে করিয়ে দিতে হবে। কখনো কখনো আপনার মনে হবে আপনার INFP সন্তান ঠিকমতো আপনার কথা শুনছে না, আপনার কথা পাত্তা দিচ্ছে না ঠিকমতো। একারণে আপনার রাগ হতে পারে। কিন্তু মজার বিষয় হলো তারা ইচ্ছাকৃতভাবে এমন করে না। হতে পারে তারা নিজের ভেতর ডুবে থাকার কারণে আপনার কথাটা শুনেইনি অথবা শুনলেও তা সেই মুহূর্তে ধরতে পারেনি, পরমুহূর্তে সে তা ভুলেই গেছে। এমন পরিস্থিতিতে তার উপর রেগে না গিয়ে সময় ও ধৈর্য নিয়ে তাকে ভালোভাবে বুঝিয়ে বলুন। তাদেরকে কখনো কখনো অনেক বেশি রুড মনে হতে পারে। তাদের কোন আচরণ কাউকে কষ্ট দিয়েছে কিনা তা সে ধরতে পারে না। অনেক বেশি আত্মকেন্দ্রিক হওয়ার কারণে এমনটা হয়। যখন সে বুঝতে পারবে বা জানতে পারবে তার কোন আচরণ অগ্রহণযোগ্য ছিলো, তখন সে নিজেকে ডিফেন্স করার চেষ্টা করবে।

INFP প্রোফাইল এর  বাচ্চারা অনেক বেশি ইমোশনাল হয়ে থাকে। দেখা যাবে তারা অনেক ছোট ছোট বিষয় নিয়েও ইমোশনাল আঘাত পায়। যেটা কখনো কখনো আমাদের কাছে স্বাভাবিক মনে নাও হতে পারে। শুধু যে ছোট বয়সে তারা এমন হয় তা না! বড় বয়সেও তাদের মাঝে এই অনুভূতিপ্রবণতা থেকে যায়। INFP প্রোফাইল এর ছেলেদের জন্য এই বিষয়টা কিছুটা চ্যালেঞ্জিং একই সাথে চ্যালেঞ্জিং INFP-র বাবা-মায়ের জন্যও। আমাদের সমাজে হাজার বছর ধরেই একটা ট্যাবু আছে, ছেলেরা বেশি ইমোশনাল হতে পারবে না। তাছাড়া আশেপাশের মানুষের চাপ, পরিচিতদের ক্রিটিসিজম যেমন-ছেলেমানুষ এমন করে কাঁদে, এত বড় হয়েও এমন ছোট ছোট বিষয়ে আবেগি, লজ্জা করে না এমন নানান ক্রিটিসিজমের কারণে কিছু কিছু INFP একসময় নিজেদের অনুভূতিগুলো শেয়ার করার আগ্রহ হারিয়ে ফেলে। কিন্তু ভেতরে ভেতরে ঠিকই সে নিজের অনুভূতিগুলোর জন্য কষ্ট পায়। এমন পরিস্থিতিতে আপনি আশেপাশের পরিবেশ, সমাজ নিয়ে না ভেবে নিজের সন্তানকে নিয়ে ভাবুন। তাকে তার আগ্রহের জায়গা থেকে সরিয়ে দেবেন না। আপনাকে মনপ্রাণ দিয়ে বিশ্বাস করতে হবে, আপনার সন্তানের অনুভূতিগুলো মোটেও অস্বাভাবিক না, এটা সম্পূর্ণ স্বাভাবিক বিষয়! তার অনুভূতিগুলো মনোযোগ দিয়ে শুনে, বুঝে তাকে সাহায্য করুন, মানসিকভাবে সমর্থন দিন। সে যেন তার সকল অনুভূতি আপনার সাথে শেয়ার করতে পারে তাকে তাকে সে নিশ্চয়তা দিন ও সাহস যোগান।

টিনএজার INFP (বয়স ১১-১৬ বছর)

টিনএজার INFP প্রোফাইল অনেক বেশি স্পর্শকাতর হয়। এইসময়ে তারা নিজের সম্পর্কে স্বাধীনভাবে সিদ্ধান্ত নিতে গিয়ে কিছুটা সিদ্ধান্তহীনতায় ভোগে, দ্বিধায় ভোগে। সিদ্ধান্ত নেয়াটা সবসময় তাদের কাছে জামেলার ও পীড়াদায়ক মনে হয়। কিন্তু এই সময়টাতে তাদের অনেক ব্যাক্তিগত বিষয়ে (যেমন-সম্পর্ক, পরিবার, বন্ধু, পড়ালেখা, ভবিষ্যত পরিকল্পনা ইত্যাদি) তাদেরকেই সিদ্ধান্ত নিতে হয়। যদিও তারা তাদের ভবিষ্যত পরিকল্পনা নিয়ে ভাবে, চিন্তায় থাকে, কল্পনায় নিজের পছন্দমতো ভবিষ্যত সাজায়, নিজের অনেক বিষয় নিয়ে নিজের ভেতর একটা ফ্যান্টাসির জগত তৈরি করে। ফ্যান্টাসির জগতে সবই ঠিক থাকে। কিন্তু বাস্তবে সিদ্ধান্ত নিতে গেলেই তারা সমস্যায় পড়ে, দ্বিধায় পড়ে, এক ধরণের দোদ্যুল্যমান অবস্থায় থাকে। সেজন্য বাবা-মার উচিত এই সময়ে তার প্রতি বিশেষ নজর দেয়া। তাকে সিদ্ধন্ত নিতে সাহায্য করা। তার সাথে কথা বলে, তার ফ্যান্টাসি ও আগ্রহ বুঝে তার সামনে সম্ভাব্য বেশ কিছু অপশন খোলা রাখা ও সেরা অপশনটি বেছে নিতে তাকে সাহায্য করা।

টিনএজ বা তার পরের সময়ে প্রায় সব মানুষকেই কখনো কখনো নিজের দুনিয়া সাজাতে, স্বাধীন কিছু করতে, পড়ালেখা বা অন্যান্য কোন কারণে পরিবারের কাছ থেকে কিছু সময় কিংবা কখনো কখনো লম্বা সময়ের জন্য দূরে যেতে হয়, দূরে থাকতে হয়। এই সময়টা একজন INFP প্রোফাইল এর জন্য বেশ চ্যালেঞ্জিং। তার অনেক বেশি পরিবারের সাথে সম্পৃক্ত হওয়ার কারণে, সবসময় পরিবারের মানুষজন দ্বারা নিজেকে আবৃত করে রাখার কারণে তার জন্য এই সময়েটা কিছুটা কঠিন। এই সময়ে সে নিজের এই অনুভূতিটাকে কিছুটা আড়াল করতে চায়, কষ্ট হলেও সে তা লুকিয়ে রেখে সামনে হাঁটতে চায়। তাকে দেখে খুব একটা বোঝা যা গেলেও সে এই সময়ে ঠিকই একটা মানসিক যন্ত্রণার মধ্যে থাকে।। তো এই সময়টাতে বাবা-মার উচিত যতটুকু সম্ভব তাকে সাপোর্ট করা। সম্ভব হলে নিয়মিত তার সাথে গিয়ে দেখা করা, তাকে একটু সময় দেয়া, প্রতিদিন ফোন করে খোঁজ খবর নেয়া। মানে যতভাবে, যতবেশি তার সাথে শারীরিক, মানসিক যোগাযোগ রাখা যায় ততভাবেই রাখতে হবে।

INFP প্রোফাইল এর বাচ্চাদের আইডিয়া নিয়ে কেউ সাধারণ কোন নেগেটিভ কথা বললে বা সমালোচনা করলে সে অনেক বেশি মুষড়ে পড়ে। কখনো কখনো তার কোন আইডিয়াকে পরিবর্তন করতে বললেও সে তা ভালোভাবে নিতে পারে না। কখনো কখনো এইসব কারণে সে কোন গ্রুপওয়ার্ক বা প্রজেক্ট থেকে নিজেকে সরিয়ে নেয়। সবকিছুকে পার্সোনালি নেয়ার কারণে, সবকিছু শুধু নিজের জায়গা থেকে দেখার কারণে তার এই সমস্যাটা হয়। এক কথায় নিজেকে ভিক্টিম ভাবার একটা প্রবণতা তার মাঝে দেখা যায়। এজন্য এই সময়টাতে তার সাথে এইসব বিষয় নিয়ে আলোচনা করা যেতে পারে। পরামর্শ বা সমালোচনা বা কোন ভুল ধরিয়ে দেয়ার মাধ্যমে যে তার আইডিয়াটি, ভাবনাটি আরো অনেক বেশি সুন্দর ও সমৃদ্ধ হতে পারে তা তাকে বুঝিয়ে বলতে হবে। আর কখনো কখনো তাকে সময় দিতে হবে তার মত করে ভাবার জন্য।

কেমন হবে INFP প্রোফাইল এর সন্তানের প্রতি আমাদের আচরণ? জেনে নেয়া যাক এক নজরে।

• তারা বই পড়তে অনেক পছন্দ করে। তাদেরকে যত সম্ভব বই পড়ার সুযোগ ও ভালো ভালো বই ও তার পছন্দের বই সংগ্রহ করে দিতে হবে।
• তাদেরকে নিয়মিত লাইব্রেরিতে যাওয়ার ব্যাপারে উৎসাহী করতে হবে। অবশ্য তারা লাইব্রেরিতে যাওয়ার ব্যাপারে সেলফ মোটিভেটেড থাকে। আপনি শুধু তাকে স্থানীয় কোন লাইব্রেরির মেম্বার করে দিন। তার নিজের লাইব্রেরি কার্ড বানিয়ে দিন।
• কালচারাল আর্ট, ক্রিয়েটিভ আর্টের প্রতি তাদের আগ্রহ থাকে। আপনি শুধু তাকে উৎসাহ জুগিয়ে যান।
• তাদের কোন ভুল বা অগ্রহণযোগ্য আচরণের জন্য তার সাথে নরম সুরে কথা বলুন। কথা বলার সময় নরম ও সৌহার্দ্যপূর্ণ অবস্থান রাখুন।
• কখনো যদি তার উপর বেশি যান কিংবা একটু দুর্ব্যবহার করেন তাহলে দ্রুত দুঃখ প্রকাশ করুন। তাকে আহ্লাদ করুন, ভালোবাসুন। স্বাভাবিক করার জন্য যা যা করা দরকার সব করুন।
• তাদের আইডিয়া, ভাবনা শেয়ার করার জন্য তাকে উৎসাহ দিন। তার আইডিয়াগুলো পূর্ণাঙ্গ মনোযোগ দিয়ে শুনুন ও তার সাথে আলোচনা করুন।
• তাদের অনুভূতিগুলো প্রকাশ করার পূর্ণ স্বাধীনতা তাকে দিতে হবে। তার কাছে আপনার এমন একটা অবস্থান তৈরি করুন, যেন সে সবকিছুই আপনার সাথে শেয়ার করার ভরসা পায়।
• তাদেরকে কখনো কখনো তাদের মতো থাকতে দিন। কোন গ্রুপ কিংবা ফ্যামিলি গ্যাদারিং বা অন্য যেকোন গ্যাদারিংয়ে সে থাকতে না চাইলে তাকে জোর করবেন না। বরং তাকে তার সময় মতো অংশগ্রহণ করার স্বাধীনতা দিন।
• তাদের সকল ধরণের কৌতূহল ও শৈল্পিক ভাবনাগুলোর যত্ন নিতে হবে।
• সিদ্ধান্ত নেয়া, নিজের সবকিছুকে ঠিকঠাক রাখা, কোন কিছু ভুলে গেলে মনে করিয়ে দেয়া ইত্যাদি ক্ষেত্রে তাকে সহযোগিতা করতে হবে।
• তাদের আইডিয়াগুলোকে নার্সিং করা, তাদের সামনে বিকল্প কোন পথ তুলে ধরার সময় যথেস্ট প্রাইভেসি রক্ষা করুন। প্রয়োজনে পার্সোনাল ইন্টারেকশনের মাধ্যমে আলোচনা করুন।
• কোন সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও সমস্যা সমাধানের সম্ভাব্য বিকল্প গুলো তার সামনে উপস্থাপণ করুন ও তার সাথে আলচনায় সঠিক সিদ্ধন্ত ও সঠিক অপশন পছন্দ করতে তাকে সাহায্য করুন।

আপনার INFP প্রোফাইল এর সন্তানের জন্য শুভকামনা। সাথে আপনার জন্যও। আপনার সন্তানের শৈশব সুন্দর ও জীবন সাফল্যমণ্ডিত হোক।

4 total views, 1 views today

What People Are Saying

Facebook Comment